অবৈধ সম্পর্কের জেরে নিজের স্ত্রী ও ভাইয়ের বৌকে খুন করে আত্মঘাতী এক ব্যাক্তি

আমার বাংলা ডেক্স ঃ  অবৈধ সম্পর্কের জেরে নিজের স্ত্রী ও ভাইয়ের স্ত্রীকে খুন করে আত্মঘাতী হলেন এক ব্যাক্তি। আজ দুপুরের দিকে তিনজনের দেহ উদ্ধার করে আসানসোল উত্তর থানার পুলিশ। ঘটনার জেরে আসানসোলের গাড়ুই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিশ জানিয়েছে মৃতদের নাম প্রশান্ত ঘোষ (৫২), তার স্ত্রী সীমা   ঘোষ (৪২) ও তার ভাইয়ের স্ত্রী নিলীমা ঘোষ (৩৮)। নিলীমা ছিলেন প্রশান্তের জেঠঠুতো ভাইয়ের স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে গাড়ুই গ্রামে স্ত্রী ও এক পুত্রকে নিয়ে থাকতেন প্রশান্ত বাবু। মাস চারেক আগে তার এক মেয়ে আত্মঘাতী হয়।কয়েকশো মিটার দূরে থাকতেন বিধবা নিলীমা ঘোষ। গতকাল সন্ধে থেকেই নিলীমার খোঁজ মেলেনি। নিলীমার ছেলে প্রশান্তের বাড়িতে খোঁজে এসে তালাবন্ধ বাড়ি দেখে ফিরে যায়।  আজ রবিবার দুপুর পর্যন্ত তাদের কোনো সারাশব্দ না পেয়ে স্থানীয়রা বাড়ির পাঁচিল দিয়ে উঁকি মেরে দেখে একটা গাছের মধ্যে প্রশান্ত বাবুর দেহ ঝুলছে আর কিছুটা দূরেই রক্তাক্ত অবস্থায় সীমা  দেবী ও নিলীমা দেবীর দেহ পড়ে আছে। চারিদিকে রক্ত বয়ে যাচ্ছে।

খবর পেয়ে আসানসোল উত্তর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে।পুলিশ এসে দেখে বাড়ির দরজার সামনে দুই মহিলার রক্তাক্ত দেহ পড়ে আছে। দুজনেরই মাথা থেঁতলানো।  বাড়ির দেওয়ালেও রক্তের ছাপ মিলেছে , উদ্ধার হয়েছে একটা হাতুড়ি  ও একটা রক্তমাখা ছোটো বাঁশ।এছাড়া বিছানায় বেশ কিছু পাঁচশো ও হাজার টাকার নোট পরে আছে।   পুলিশের প্রাথমিক ভাবে সন্দেহ ঘরের ভিতরে একজনকে খুন করে তাকে টেনে বাইরে নিয়ে আসা হয়। বাড়ির ভিতর থেকে বাইরের দিকে রক্তের ছাপ ছিল স্পষ্ট। পুলিশ জানতে পেরেছে কালীপুজোর রাতে প্রশান্ত বাবুর ছেলে মামার বাড়িতে ছিল।  এছাড়া বাড়িতে কেউ না থাকলেই নিলীমা দেবী মাঝেমাঝেই তাদের বাড়িতে আসতো। শনিবার কালীপুজোর দিনে প্রশান্ত বাবু একা ছিলেন। হয়তো সেই সময় নিলীমা দেবী এসেছিলেন। পরে হঠাত করে সীমা  দেবী বাড়ি ফেরায়  হয়তো তিনি তার স্বামীকে নিলীমার সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন। এর জেরেই সীমাকে  খুন করা হয় বলে পুলিশ মনে করছে। কিন্তু নিলীমাকে কি কারণে খুন করা হলো তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ। শেষে আত্মঘাতী হয় প্রশান্ত। স্থানীয়দের অভিযোগ নিলীমার সাথে প্রশান্তর অবৈধ সম্পর্কের কথা তারা সকলেই জানতো। কিন্তু এর জেরে এই ভাবে তিন জনের জীবন চলে যাবে তা দেখে হতভম্ব এলাকার মানুষ। জানা গেছে প্রশান্ত বাবুর মেয়ে কুমকুম মাত্র মাস চারেক আগে আত্মঘাতী হয়। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে কুমকুমের মৃত্যু রহস্য নিয়ে। আসানসোলের এডিসিপি সেন্ট্রাল জে মার্সি জানিয়েছেন দুই মহিলাকে খুন করে আত্মঘাতী হয়েছেন এক ব্যাক্তি। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে অবৈধ সম্পর্কের জেরেই এই খুনের ঘটনা ঘটেছে।

Leave a Reply