উপাচার্য কাজ করবেন সহ উপাচার্যের নির্দেশ মেনে ! নির্দেশিকা ঘিরে বিতর্ক, তড়িঘড়ি প্রত্যাহার নির্দেশিকা

রিন্টু ব্রহ্ম, বর্ধমান : বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য  কাজ করবেন সহ উপাচার্যের নির্দেশে অভিনব এবং  নজির বিহীন এই নির্দেশিকাকে ঘিরে তোলপাড় বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিতর্ক কে ঘিরে শিক্ষা মহলে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়তেই ২৪ ঘন্টার মধ্যে ফের সেই নির্দেশ প্রত্যাহার করে নিলেন কর্তৃপক্ষ।যদিও বিষয়টি নিয়ে অহেতুক জল ঘোলা করা হচ্ছে বলে বিশ্ববিদ্যাসূত্রে জানানো হয়েছে।  বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে গত ২২ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে  বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন পাঠন  প্রশাসনিক ও আর্থিক বিষয় গুলিতে সহ উপাচার্যের পরামর্শে কাজ করবেন উপাচার্য। এই নির্দেশিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সমস্ত বিভাগে এবং গোলাপবাগ ক্যাম্পাসে পঠন পাঠনের বিভিন্ন বিভাগে তা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।  এই নির্দেশিকা হাতে পাওয়ার পরেই বিভিন্ন বিভাগের চোখ কপালে উঠে যায়। ফোনাফুনিতে তোলপাড় চলে বিশ্ববিদ্যালয় ।

burdwan-university-vc-contro_photo_important_pulak_burdwan_24-1

২৩ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন দফতর থেকে এই খবর যায় রাজ্য উচ্চ শিক্ষা দফতরে। উচ্চ শিক্ষা দফতরের কর্তারা  সেই নির্দেশ হাতে পাওয়ার পরেই বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সহ উপাচার্যের কাছে খোঁজ খবর নেয়। প্রকৃত বিষয় জানতে পারার পরেই কর্মসচিবকে ওই নির্দেশিকা প্রত্যাহার করার নির্দেশ দেন তারা।রেজিস্ট্রার ডঃ দেব কুমার পাঁজা জানান , বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী সহ উপাচার্য কোন কোন বিষয়ে উপাচার্যকে সাহায্য করবেন তা স্পষ্টভাবেই বলা আছে। নোটিফিকেশনে বলা হয়েছিল সহ উপাচার্য উপাচার্যকে শিক্ষা বিষয়ক, উন্নয়নের ব্যাপারে , পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ছাত্রছাত্রীদের সুবিধার ব্যাপারে, বিভিন্ন কলেজের বিষয়ে সাহায্য করবেন। এছাড়াও বাজেটের ব্যাপারেও তিনি সাহায্য করবেন। এটা কিন্তু উনি এমনিতেই সাহায্য করেই থাকেন। এছাড়া আন্ডার গ্র্যাজুয়েটদের যে অ্যাডভাইসরি কমিটি আছে সেখানে সহ উপাচার্যই চেয়ারম্যান। এই বিষয়গুলি সবাইকে অবহিত করার জন্যই নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছিল। মূলত আধিকারিক দের অবহিত করার জন্য উপাচার্যের নির্দেশেই এই নোটিফিকেশন জারি করা হয়েছিল। কিন্তু বিতর্ক দানা বাধতেই উপাচার্য সেটা প্রত্যাহার করে নিতে বলেন। কিন্তু এর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন কিন্তু বদলে যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক  খন্দেকর আমিরুল ইসলাম বলেন নিময় মেনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত কাজকর্ম হওয়া উচিত।

Leave a Reply