এবার এটিএম জালিয়াতির শিকার বুদবুদের এক ব্যবসায়ী

মহুয়া ঘোষাল, বুদবুদ :  এবার এটিএম জালিয়াতির শিকার হলেন বুদবুদের এক ছোটো ব্যবসায়ী। প্রতারকেরা তাকে ভুয়ো ফোন করে তার এটিএম কার্ডের পিন নাম্বার জেনে নেন। এরপরেই তার অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেওয়া হয় ৮৯০০ টাকা । শেখ সুফিয়ান । কাঁকোড়ার বাসিন্দা এবং ছোট ব্যাবসায়ি । স্ত্রী ক্যান্সার আক্রান্ত । কেমথ্যারাপি চলছে স্ত্রীর । মনমেজাজ খুবই খারাপ । ব্যাংকে আছে মাত্র ৮৯৬১ টাকা । ঘরেতে অভাব । স্ত্রীর জন্য ওষুধ এবং পথ্য জোগাড়েই প্রাণান্তকর অবস্থা । ঠিক এই সময় গতকাল [ রবিবার ] দুপুর নাগাদ একটি ফোন আসে । ফোনের ওপার থেকে গম্ভীর গলায় জানানো হয় আমি ব্যাংক ম্যানেজার বলছি । আপনার এ টি এম কার্ডের ভ্যালিডিটি শেষ হয়ে যাবে আগামীকাল । আপনি আপনার এ টি এম কার্ডের পিন নাম্বার বলুন । তাহলে আপনার এটি এম কার্ড বন্ধ হয়ে যাবে না । শেখ সুফিয়ান জানান তিনি ভ্যাবাচাকা খেয়ে যান । আবার ফোনে বলা হয় আপনি আগামীকাল সকালে ব্যাংক খোলার সোজা আমার কাছে চলে আসবেন । এরপর অজ পাড়া গ্রামের বাসিন্দা সেখ সুফিয়ান একের পর এক প্রশ্নের উত্তর দিয়ে যান ফোন কর্তার । সাথে সাথে বলে দেন তার এ টি এম কার্ডের পিন নাম্বার ।

কাঁকসার এস বি আই ব্যাংকের শাখায় আজ সকালে যান ম্যানেজারের সাথে দেখা করতে । গতকালকে আসা ফোনে যেভাবে প্রতারক সুফিয়ানকে নির্দেশ দেয় । ব্যাংক ম্যানেজার বলেন তিনি তাকে দেখা করতে বলেন নি । এরপর ব্যাংক ম্যানেজার সব কথা জানতে চান । শেখ সুফিয়ান এবার গতকালের ফোনে আসা সমস্ত কথা এবং নির্দেশ  বলেন ব্যাংক ম্যানেজারকে ।

অ্যাকাউন্ট নম্বর জেনে ব্যাংক ম্যানেজার দেখেন সেখ সুফিয়ানের এটিএম কার্ড ব্যাবহার করে সুফিয়ানের ব্যাংক আকাউন্ট থেকে ৮৯০০  টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে । পড়ে আছে শুধু ৬১ টাকা ।

সব শুনে বাজ ভেঙে পড়ে মাথায় । ওই টাকা টুকুই সম্বল ছিল স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য । হতাশ সুফিয়ান নিয়ম মাফিক ব্যাংক ম্যানেজারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ জানান তার এ টি এম কার্ড থেকে জালিয়াতি করে ৯৮০০ টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে ।

প্রশ্ন উঠছে বারবার একই পদ্ধতিতে এ টি এম কার্ডের পিন নাম্বার ব্যাবহার করে কিভাবে টাকা তুলে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে । ব্যাংক কি ব্যাবস্থা নিচ্ছে এই প্রশ্নও উঠছে ভুক্তভুগিদের মধ্যে ।

Leave a Reply