এবার বিক্ষোভের জেরে তালা ঝুললো রানীগঞ্জের রেশন দোকানে

রেশন দোকানে জিনিস সরবরাহে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে এমনিতেই কিছুটা উত্তপ্ত আসানসোল শিল্পাঞ্চল। গত কয়েকদিন ধরে শিল্পাঞ্চলের বেশ কয়েকটি দোকানে তালা ঝুলিয়ে দেয় গ্রাহকেরা। আজ সোমবার রানীগঞ্জের বল্লভপুর এলাকায় বাসিন্দারা রেশন দোকানে গিয়ে দেখেন সেখানে নোটিশ বোর্ড সাঁটানো আছে। তাতে লেখা আছে এই সপ্তাহে RKSY-II ছাড়া সমস্ত রকম নতুন ডিজিট্যাল রেশন কার্ডে ও শুধুমাত্র পুরোনো AAY রেশনকার্ডে রেশন সামগ্রী দেওয়া হবে। এই নোটিশ দেখার পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাসিন্দারা। তারা এদিন দোকান বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তাদের অভিযোগ বল্লভ পুর এলাকায় নতুন রেশন কার্ড তৈরির প্রক্রিয়া সেভাবে না হওয়ায় বেশীর ভাগ মানুষের নতুন রেশন কার্ড হয়নি। ফলে পুরোন রেশন কার্ডেই আরা এতদিন রেশনের দ্রব্য সামগ্রী সংগ্রহ করতেন। কিন্তু আজ হঠাত করে পুজোর আগে এই ধরণের বিজ্ঞপ্তি জারি করায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাসিন্দারা। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব ও পঞ্চায়েতের সদস্যরা রেশন দোকানে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও বাসিন্দারা তাদের দাবিতে অনড় থাকেন। পরে খবর পেয়ে বল্লভপুর ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি সামাল দেয়। কিন্তু দোকান খোলেনি। স্থানীয় বাসিন্দা মদন মুখার্জী বলেন প্রথমে নতুন রেশন কার্ড দেওয়া নিয়ে নানা সমস্যায় পড়তে হয়েছে। পরে বিডিও অফিসে রেশন কার্ড আনতে গেলে তাদের জানানো হয় কিছু মানুষকে কার্ড দেওয়া হয়েছে। ফলে পুরোনো রেশন কার্ড নিয়ে আজ তারা রেশন দোকানে এসে জানতে পারেন নতুন কার্ডে রেশন দেওয়া হচ্ছে। তাই যাদের পুরোনো কার্ড আছে তাদেরও রেশন দেওয়ার দাবি জানিয়ে দোকান বন্ধ করে দেয়। দিলে নতুন পুরোনো সব কার্ডেই রেশন দেওয়ার দাবি জানান তারা। রেশন ডিলার পার্থ বিদ জানান সেপ্টেম্বরের প্রথম দুই সপ্তাহে সরকারি বরাদ্দ মতো নতুন ও পুরোনো কার্ডে দ্রব্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শেষ দুই সপ্তাহের জন্য সরকারের তরফে মাত্র নতুন কার্ডের জন্য দ্রব্য সামগ্রি পাঠানো হয়েছে। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই পুরোনো কার্ডে তারা দ্রব্য সামগ্রী সরবরাহ করতে পারেননি। ফলে গ্রাহকেরা বিক্ষোভ দেখিয়ে দোকান বন্ধ করে।

Leave a Reply