কাজ দেওয়ার নাম করে পাচারের উদ্ধার  চার  মহিলা  তামিলনাড়ু থেকে, ধৃত এক

এক নাবালক সহ চার  জন মহিলাকে তামিলনাড়ুর ত্রিপুর জেলার মোলালি থানার নাভাপল্লী গ্রামের একটি পোলট্রি ফার্ম থেকে উদ্ধার করে নিয়ে এল আউশগ্রামের ছোড়া থানার পুলিশ । এর আগে  ১১ জন মহিলা কোনরকমে পালিয়ে আসেন । চার  জন  আদিবাসী মহিলা আটকে পড়েন । আউশগ্রামের ছোড়া থানার আইসি সুজিত ভট্টাচার্জের নেতৃত্বে পুলিসবাহিনী  তামিলনাড়ু গিয়ে ওই চার  জনকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে । পুলিশ জানিয়েছে , মুল অভিযুক্ত মোহনলাল যাদবকে শনিবার গ্রেফতার করে ট্রানজিট রিমান্ডে বর্ধমান নিয়ে আসা হয়েছে । এই পাচার চক্রের সাথে আর কেউ যুক্ত কিনা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ ।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে , ২০১৫ সালের মার্চ মাস নাগাদ আউশগ্রামের হাটমাধবপুর গ্রামের ১৫ জন আদিবাসী মহিলাকে কাজের টোপ দিয়ে তামিনাড়ুতে নিয়ে আসা হয় । আউশগ্রামের কুরুম্বা গ্রামের সুমিত্রা সোরেন নামে এক মহিলার মাধ্যমেই তাঁরা যায় , বলে পুলিশ জানিয়েছে । তাদেরকে তামিলনাড়ুর ত্রিপুর জেলার মোলালি থানার নাভাপল্লী গ্রামের একটি পোলট্রি ফার্মে কাজ দেওয়া হয় । তাদের অভিযোগ , তাদের মজুরি দেওয়া হতনা । ঠিক মত খেতেও দেওয়া হত না । এক প্রকার ক্রীতদাসের মত আচরন করা হত তাদের উপর । এদের মধ্যে ১১ জন মহিলা কোনপ্রকারে পালিয়ে আসেন । ফিরে এসে ফুলমনি হাঁসদা নামে এক মহিলা ২০ শে জুলাই আউশগ্রামের ছোড়া ফাঁড়িতে অভিযোগ দায়ের করেন ।

ফুলমনি হাঁসদার অভিযোগ , তাদের সঙ্গে কাজে যাওয়া ৪ জনকে তামিলনাড়ুর এরর স্টেশনের কাছে একটি পোলট্রি ফার্মে আটকে রাখা হয়েছে । খাবার ,মজুরি চাইলে মারধর করত ।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে , এরপর আউশগ্রামের ছোড়া ফাঁড়ির পুলিশ সক্রিয় ভুমিকা নেয় । গত ৩ রা সেপ্টেম্বর আইসি সুজিত ভট্টাচার্জের নেতৃত্বে একটি দল তামিলনাড়ু যায় । তামিনাড়ুর ত্রিপুর জেলার মোলালি থানার পুলিশকে নিয়ে ওই ফার্মে হানা দেয় পুলিশ । উদ্ধার করা হয় কিয়ান মান্ডি, শর্মিলা সোরেন ,সুমিতা সোরেন ,মালতি শোরেন ও শর্মিলা সোরেনের শিশু পুত্রকে ।

 

Leave a Reply