কাটোয়ার শ্রীবাটি গ্রামে বিস্ফোরণে উড়ে গেল ক্লাব, মৃত এক, উদ্ধার ৩০ টি তাজা বোমা

দিব্যেন্দু রায়,ভাতার ঃ ক্লাব ঘরে মজুত রাখা ছিল বিপুল পরিমান বিস্ফোরক । তাতে বিস্ফোরন ঘটে নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল ক্লাব ঘরের অস্তিত্ব । এই বিস্ফোরনে মৃত্যু হয় এক প্রৌড়ের । সোমবার ভোর ৫ টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে কাটোয়ার শ্রীবাটি গ্রামে । পুলিশ জানিয়েছে মৃতের নাম লাল মহম্মদ শেখ (৭২) । ক্লাব ঘরের পাশেই তাঁর বাড়ি । ঘটনার সময় তিনি ক্লাব ঘরের দাওয়ায় বসে ছিলেন । বিস্ফোরনে ঘরের দেওয়াল তাঁর উপরে চাপা পড়ায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে ।

বিস্ফোরনের ২ ঘণ্টা পর ঘটনাস্থলে পুলিশ যায় । ছুটে আসেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীন) রাজনারায়ন মুখোপাধ্যায় , মহকুমা পুলিশ আধিকারিক শচীন মাকড়া সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী । ক্লাব ঘরের ঠিক পাসেই একটি কালভার্টারের নিচে থেকে ৩০ টি তাজা বোমা উদ্ধার করে পুলিশ । বোমা গুলি নিষ্ক্রিয় করতে ডাকা হয় বম্ব স্কোয়াডকে ।অতিরিক্ত  পুলিশ সুপার বলেন , ‘ ক্লাব কর্মকর্তারা ঘটনার পর থেকেই পলাতক । তাদের খোঁজ চলছে । এত বিপুল পরিমান বিস্ফোরক কি কারনে মজুত করা হয়েছিল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে ।’

katwa-blast_photo-3

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে , শ্রীবাটি গ্রামের পুর্ব পাড়ায় ‘মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাব ‘ নামের ক্লাব ঘরে এই ঘটনাটি ঘটে । ইটের দেওয়াল ও পাকা ছাদ ছিল ক্লাবের । এইদিন ভোরে লালমোহন শেখ নামের এক প্রৌড় ক্লাব ঘরের বারান্দায় বসে ছিলেন । কয়েক জন ক্লাবের পাশের  কলে মুখ ধুচ্ছিলেন । সেই সময় প্রবল জোরে বিস্ফোরন হয় । বিস্ফোরনে সমগ্র ক্লাব ঘর কার্যত মাটিতে মিশে যায় । স্থানীয় মানুষরা দেখেন লালমোহন বাবুর রক্তাক্ত দেহ ক্লাবের দেওয়ালে চাপা পড়ে আছে । কয়েকজন এসে তাঁকে উদ্ধার করে । ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয় ।স্থানীদের অভিযোগ , মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাবের আড়ালে চলত যাবতীয় অসামাজিক কাজ । তাঁরা ক্লাবের কর্মকর্তাদের ভয়ে কার্যত সিটিয়ে থাকতেন । স্থানীয়রা জানান, একাধিক বার প্রশাসনকে এই ক্লাবের কর্মকান্ডের বিষয়ে জানানো হয়েছে । কিন্তু কোন এক অজানা কারনে প্রশাসন কোন ব্যাবস্থা নেয়নি ।স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে , ওই ক্লাবটি তৃনমুল কংগ্রেস প্রভাবিত । গ্রামে আরো একটি ছোট ক্লাব রয়েছে । কাটোয়ার শ্রীবাটি গ্রামের ওই ক্লাবের ঘরে ঘটে যাওয়া বিস্ফোরনের তীব্রতা দেখে চোখ কপালে উঠে গিয়েছে জেলা প্রশাসনের । বিস্ফোরকগুলি ঠিক কি কারনে মজুত করা হয়েছিল তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ ।

Leave a Reply