জাগরনী সংঘের পুরীর রথ ও পঞ্চকালী নজর কাড়বে দর্শকদের

দুর্গাপুজোর মতোই কালীপুজোতেও সেই যুদ্ধ। এ যুদ্ধ প্রতিযোগিতার। টেক্কা দেওয়ার যুদ্ধ। বিনা লড়াইয়ে একচুল জমিও ছাড়তে রাজি নয় কেউ। তাতে সে বিগ বাজেটের হোক আর অল্প বাজেটের পুজো। কালীপুজোয়ও থিম ভাবনায় নতুনত্বের চমক তুলে ধরেছে অনেকে।  কোথাও থাকছে প্রতিমায় থিম তো কোথাও মণ্ডপে। আবার যার ট্যাঁকে কড়ির জোর আছে সে প্রতিমা ও মণ্ডপ দুয়েতেই স্রেফ ফাটিয়ে দিয়েছে। তাই বারাসাতের কালীপুজোর মতোই বর্ধমানের পুজোর উদ্যোক্তারাও কোনো দিকে খামতি রাখতে চাইছেন না। মুখে না বললেও দর্শনার্থীদের কে বেশি টানবে সেই লড়াই সর্বদাই চলে আসছে। তাই থিম পুজো্য় কোথাও থাকছে পুরীর রথ, কোথাও ত্রিমূর্ত্তি কালী, কোথাও করণ-অর্জুন কালী, আবার কোথাও কাল্পনিক মন্দিরের আদলে মণ্ডপে থাকছে শিবের নানা রূপ। সব মিলিয়ে থিমের কালীপুজোয় মেতে উঠেছে বর্ধমান।

burdwan-jagarani-sangha-kali_photo_priyanka_burdwan_29-3

ছোটনীলপুর জাগরণী সঙ্ঘের কালীপুজো বিগ বাজেটের পুজোগুলির মধ্যে অন্যতম। এবার এখানকার থিম ‘পুরীর রথ’। সঙ্ঘের নিজস্ব ফুটবল খেলার মাঠের এক  প্রান্তে ঘোড়ায় টানা বিশালাকার পুরির মন্দিরের আদলে রথ তৈরি করা হয়েছে। ক্লাব সম্পাদক সোমনাথ দে ও পুজো কমিটির সম্পাদক প্রসেনজিৎ বিশ্বাস জানালেন, ৪৬তম বর্ষে পড়ল আমাদের কালীপুজো। এখানকার পুজোয় মণ্ডপ ও প্রতিমা দুটিতেই থাকছে থিমের ছোঁয়া। ঘোড়ায় টানা পুরির রথের আদলে মণ্ডপ তৈরি করেছে হুগলীর চাচাইয়ের বীনাপানী ডেকোরেটর। মণ্ডপের ভেতরে থাকছেন পুজোর শ্যামাকালী। এ ছাড়াও মূল আকর্ষণ থিমের পঞ্চকালী। পঞ্চকালীতে থাকছেন শিবলিঙ্গ কালী, শিবপার্বতী কালী, গণেশজননী কালী, দক্ষিণেশ্বরের কালী ও তারাপীঠের কালী। প্রতিমা শিল্পী নারায়ন পাল। এ ছাড়া মণ্ডপের ভেতরে পুরির মন্দিরের স্থাপত্য তুলে ধরা হয়েছে। কচিকাঁচাদের জন্য মাঠের অর্ধেক অংশজুড়ে পাঁচদিন ব্যাপী মেলারও আয়োজন করা হয়েছে।

 

Leave a Reply