টানা তিন দিনের টানা ছুটিতেও ভিড় জমল না দীঘাতে, কিন্তু কেন? ক্লিক করে দেখুন

জাহাঙ্গীর বাদশা , দীঘা

ডিসেম্বর মানেই হাল্কা শীতের আমেজে পিকনিকে আনন্দ উপভোগ করতে কে না চায়। তবে ইচ্ছা থাকলেও উপায় নেই। কারন নোট বাতিলের ধাক্কায়  সেই আশায় নিরাশায় পরিনত হয়েছে। দীর্ঘ  একমাস কেটে যাওয়ার পর ব্যবসায়িরা মনে করেছিল ব্যবসা স্বাভাবিক  ছন্দে ফিরে আসবে। দীঘার ব্যবসায়িরা ভেবেছিলেন টানা ৩ দিনের ছুটিতে দীঘার  পর্যটকদের ভীড় জমবে। কিন্তু তা হয়নি।নভেম্বর মাসের  ৮ তারিখ থেকে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ৫০০ ও ১০০০ টাকার পুরানো নোট বাতিল ঘোষনা করার পর থেকে রাজ্যের পর্যটক মানচিত্রে দীঘা, মন্দারমণি,তাজপুর, শঙ্করপুর  পর্যটন কেন্দ্রে ব্যবসায় ভাটা পড়ে। পর্যটকদের পথ চেয়ে চেয়ে দিন কাটাতে থাকে ব্যবসায়িরা। দীর্ঘদিন কেটে যাওয়ার পর ভেবেছিল কিছুটা পরিবর্তন ঘটবে কিন্তু তা হয়নি। গতবছর ডিসেম্বর মাসের প্রথম দিন থেকে পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে পর্যটকদের ভীড় জমে উঠেছিল দেখার মত। ছোটগাড়ি, বড়্গাড়ি,ট্রেনে পর্যটকদের যাতায়াত ছিল চোখে পড়ার মত। কিন্তু বর্তমানে তা জনশূন্যতায় পরিনত হয়েছে। দীঘার সমুদ্র সৈকতের যেদিক চোখ যেত শুধু মানুষেত মাথা আর মাথা। আর এখন হাতে গোনা কয়েকজনের দেখা মিলছে।

দীঘা শঙ্কুরপুর হোটেল ওনার্স এয়াসোসিয়েশানের সাধারন সম্পাদক বিপ্রদাস চক্রবর্তী জানিয়েছেন, দীঘা পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটকরা এলেও আশাতীত নয়। নোট সমস্যায় যখন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের মানুষ সমস্যায় পড়েছেন সেখানে আমাদের রাজ্যের দীঘা পর্যটন কেন্দ্র ব্যতিক্রমি নয়।

Leave a Reply