পনেরো দিন ধরে জলের সমস্যায় ভুগছে কাঁকসার গোপালপুর

মহুয়া ঘোষাল,কাঁকসা :  টানা দু সপ্তাহ ধরে গোপালপুরের হাজার কুড়ি বাসিন্দা পানীয় জলের সমস্যায় ভুগছেন । এক বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দারা পানীয় জল পাচ্ছেন না । জল সরবরাহ দপ্তর থেকে পঞ্চায়েত প্রধান সব দপ্তরে আবেদন করেও মিটছে না সমস্যা বলে অভিযোগ বাসিন্দাদের । পি এইচ ই সুত্রে বলা হয়েছে আর এক সপ্তাহের মধ্যে জল সরবরাহ স্বাভাবিক হয়ে যাবে । কিন্তু বাসিন্দাদের অভিযোগ এই এক সপ্তাহ কিভাবে পানীয় জল সংগ্রহ করবে বাসিন্দারা । সে উত্তর অবশ্য পি এইচ ই দিতে পারে নি ।

বছর চল্লিশ ধরে গোপালপুরে পি এইচ ই জল সরবরাহ করে গোপালপুর গ্রামে । গ্রামের সত্তর শতাংশ বাসিন্দা [ প্রায় কুড়ি হাজার ] পি এইচ ই দারা সরবরাহ করা জলের উপর নির্ভরশীল । বিশেষ করে প্রায় দশটি অন্নুনত সম্প্রদায়ের পাড়া একান্তভাবেই এই জলের উপর নির্ভরশীল । সপ্তাহ দুই ধরে পানীয় জলের সমস্যায় ভুগছে এই পরিবারগুলি । এই পরিবারগুলির অভিযোগ পঞ্চায়েত থেকে বিকল্প পানীয় জলের ব্যাবস্থা করা হয় নি ।

no-water-at-gopalpur-photo-_-mahua-ghosal-_-kanksa-__-2-2

সপ্তাহ দুই আগে গ্রামে গুজব রটে যায় জল ট্যাঙ্কে বাঁদর পড়ে গিয়েছে । আতঙ্কে বাসিন্দারা জল নেওয়া বন্ধ করে দেয় সেই মুহূর্তে । গুজব জানাজানি হতেই পি এইচ ই দপ্তর থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় এটা সম্পূর্ণ গুজব ।তারপরের দিন বলা হয় পানীয় জল হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না সরবরাহ করা জল । বাসিন্দাদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াতে থাকে । গোপালপুর পঞ্চায়েত থেকে মাইকে করে প্রথমে ঘোষণা করা হয় তিন্দিন সরবরাহ করা জল পানীয় জল হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না । পরের মুহুর্তেই আবার একবার পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয় আগের নির্দেশ ভুল ছিল মাত্র একদিন পান করা যাবে জল । বাসিন্দাদের মধ্যে চরম বিভ্রান্তি ছড়ায় । গ্রাম জুড়ে শুরু হয় পানীয় জলের সংকট । বিশেষ করে মাল পাড়া বাউরি পাড়া বাগদি পাড়া বাদ্যকর পাড়া এবং অন্যান্য পাড়ায় ট্যাপ কলগুলিতে জল পড়েই নি একেবারে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে ।

স্থানীয় বাসিন্দাদের ক্ষোভ পি এইচ ই দপ্তর এতবড় একটি সমস্যাকে একেবারেই গুরুত্ব দিচ্ছে না । তৃণমূল নেতা শিবদাস মন্ডল বলেন পি এইচ ই দপ্তরে তিনি আবেদন করেন কিন্তু পি এইচ ই দপ্তর গুরুত্ব দেয় নি । তিনি পঞ্চায়েত প্রধানকে আবেদন করেছেন যাতে দ্রুত সমস্যা মেটানো হয় বলে জানান স্থানীয় তৃণমূল নেতা শিবদাস মন্ডল ।

পি এইচ ই দপ্তরের পক্ষ থেকে অরুপ কুমার পাল বলেন যান্ত্রিক ত্রুটির কারনে জল সরবরাহ বাধা পাচ্ছে । পুরানো মানচিত্র তাদের কাছে নেই । যান্ত্রিক ত্রুটি কি তা এখনো নির্ণয় করা যায় নি বলে জানান অরুপ পাল । তবে তিনি জানান দ্রুত সমস্যার সমাধানের চেষ্টা চলছে ।

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবী যেসব এলাকায় পানীয় জল সরবরাহ করা যাচ্ছে না সেই সব অঞ্চলে ট্যাঙ্কার করে জল সরবরাহ করুক পঞ্চায়েত ।

 

Leave a Reply