বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেঙে দেওয়া হলো তৃণমূলের সমস্ত কমিটি

দুর্নীতি সহ নানা অভিযোগ ওঠার পরেই বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে সারা বাংলা শিক্ষা বন্ধু সমিতির কমিটি ভেঙে দিল কেন্দ্রীয় কমিটি। মঙ্গলবার বিকালে খোদ রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এবং বর্ধমানের বিধায়ক রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনে  মাইকিং করে এই ঘোষণার পরে ব্যাপক আলোড়ন দেখা দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মী সংগঠনের মধ্যে।  মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিন্ন ভিন্ন তৃনমূল কর্মচারী সংগঠনকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসার জন্যই এই ঘোষণা বলে নেতৃত্ব জানিয়েছেন।  সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি দেবব্রত সরকার এদিন মন্ত্রী ও বিধায়ককে সাক্ষী রেখে বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী চান না বিশ্ববিদ্যালয় চলাকালে সেখানকার কর্মচারিরা কোনো সভা করুক।

Burdwan University contro_photo (1)

এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে টিফিনের সময় একটি বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে  সেই সভা বন্ধ করে দেওয়া হলো। বলা হয়েছে ছুটির দিন এই সভা করার জন্য।  পাশাপাশি বর্তমান কমিটিও ভেঙে দেওয়া হলো।  কয়েকদিনের মধ্যে নতুন কমিটি গঠন করা হবে।  আমরা চাই একসাথে সমস্ত কর্মচারিদের নিয়ে নতুন কমিটি গঠন করতে। বাম আমলে এই বিশ্ববিদ্যালয় রাজনৈতিক আখড়ায় পরিণত হয়েছিল। একতি কমিটি গঠিত হলে বিশ্ববদ্যালয়ে শান্তির পরিবেশ ফিরে আসবে।  পাশাপাশি কাজের পরিবেশও ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। আপাতত আমি নিজে এই কমিটির কার্যভার গ্রহণ করলাম।

 

Leave a Reply