বিষধর সাপের কামড়ে মৃত্যু বাবা, মা ও মেয়ের , চাঞ্চল্য

বিষধর ডোমনা চিতির দংশনে প্রাণ হারালেন একই পরিবারের তিনজন।মঙ্গল বার গভীর রাতে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে খন্ডঘোষ থানার অমরপুর গ্রামে।

পুলিশ জানিয়েছে মৃতরা হলেন রাজু খারাত (২৭), তার স্ত্রী ভাদু খারাত (২৬) ও তাদের চার বছরের কন্যা মনীষা।বেঁচে গেল তাদেরই আট বছরের একটি মেয়ে। সে তার ঠাকুমার কাছে পাশের ঘরে ঘুমিয়েছিল।গভীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় সাপে কামড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই ভাদু ও তার মেয়েকে ১৬ কিলোমিটার দূরে ওঝার কাছে নিয়ে গেলে অবস্থার আরো অবনতি হয়।তারপর চিকিতসার জন্য স্থানীয় হাসপাতাল ও শেষে বর্ধমান কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।ততক্ষণে পথেই তিন জনের মৃত্যু হয়।

3

পরিবার সূত্রে জানা গেছে রাজু পেশায় ঢালাই মিস্ত্রির কাজ করতেন।গতকাল রাতে স্বামী স্ত্রী ও তাদের চার বছরের সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে মাটির ঘরে মশারির ভিতরে শুয়েছিলেন। কোনোভাবে বিষধর ডোমনা চিতিটি মশারির মধ্যে ঢুকে পড়ে।ঘুমের মধ্যে হাত পা ছোঁড়ায় প্রথমে সাপটি কামড়ায় ভাদুকে।তারপর রাজুকে।তাদের দুজনেরই ঘাড়ে সাপে কামড়ানোর চিহ্ন দেখা গেছে।তবে শিশুটির শরীরে কোনো চিহ্ন না পাওয়া যাওয়ায় সে তার মায়ের বিষাক্ত দুধ পান করেই মারা গেছে বলে মনে করছেন চিকিতসকেরা।

জানা গেছে মঙ্গলবার গভীর রাতে স্বামী স্ত্রীকে সাপে কামড়ালে রাজু জানায় তার কিছু হয়নি।ওদিকে ভাদু গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় ভাদু ও তার মেয়েকে ১৬ কিলোমিটার দূরে বাঁকুড়ার ইন্দাসে ওঝার কাছে নিয়ে যাওয়া হয় ।  সেখানে ওঝার তুকতাকের পর অবস্থার অবনতি হয়।বেগতিক দেখে ওঝা তাদের হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলে।স্থানীয় ইন্দাস হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাদের মৃত বলে ঘোষণা  করা হয়।এদিকে বাড়িতে এসে দেখে রাজুও মারা গেছে।খন্ডঘোষ থানায় খবর দিলে পুলিশ দেহ গুলি ময়নাতদন্ত করতে বর্ধমান মেডিকেলে পাঠায়।

স্থানীয় বাসিন্দা বলেন গতকাল গভীর রাতে প্রতিবেশীদের চিৎকার চেঁচামেচিতে তাদের ঘুম ভেঙে যায়। তারা দেখতে পায় স্থানীয় রাজু কারককে সাপে কামড়েছে।যদিও রাজু তাদের জানায় তার কিছু হয়নি।তার স্ত্রী ও মেয়ে সাপের কামড়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে।তাদের যেন ওঝার কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। ফলে স্থানীয়রা ভোর নাগাদ প্রায় ১৬ কিলোমিটার দূরে বাঁকুড়ার ইন্দাসে নিয়ে যায়। ওঝা ঝাড়ফুঁক করার সময় ভাদু নেতিয়ে পড়ায় সেখান থেকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে মা ও মেয়েকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। ফলে তারা বাড়ি চলে আসে।এসে দেখে রাজুও মারা গেছে।

এদিকে তিন জনের মৃত্যু খবর পেয়ে সেখানে যান খন্ডঘোষের বিধায়ক নবীন বাগ।তিনি বলেন প্রাথমিক ভাবে অনুমান সাপের কামড়েই ওই তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু সাপ কি একসাথে তিন জনকে কামড়াতে পারে, প্রশ্ন তোলেন তিনি।

Leave a Reply