ব্যাংকের লাইনে দাঁড়ানো মানুষের হাতে জল বাতাসা তুলে প্রচার তৃণমূলের

আমার বাংলা ডেক্স, মন্তেশ্বর : ব্যাংকের লাইনে দাঁড়িয়ে টাকা তোলার জন্য নাভিশ্বাস অবস্থা বর্ধমান জেলাবাসীর। আর এই লাইনে দাঁড়ানোর সুযোগকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করে প্রচার সারলো তৃণমূল কংগ্রেস। মন্তেশ্বর উপনির্বাচনে শেষ বেলার প্রচার চলছে। রবিবার সারাদিন কালনার ভাদুরীপাড়ার ষ্টেট ব্যাঙ্ক,কালীনগরের ব্যাঙ্ক অফ বরোদা,বৈদ্যপুর মোড়ে ব্যাঙ্ক অফ বরোদা,পূর্বস্থলীর সমুদ্রগড় ষ্টেট ব্যাঙ্ক,মন্তেশ্বরের পিপলন, রাইগ্রামে কানাড়া ব্যাঙ্ক,মন্তেশ্বর,কুসুমগ্রামের ষ্টেট ব্যাঙ্ক,ইউকো ব্যাঙ্কের শাখাগুলিতে ভিড় ছিলো চোখে পড়ার মতো।দীর্ঘক্ষণ চড়া রোদে লাইনে দাঁড়িয়ে  থেকে বেশ কয়েকজন মন্তেশ্বরে অসুস্থ  হয়ে পড়ায় তারা বাড়ি ফিরে যান।সারাদিনব্যাপী এই দুর্ভোগের শিকার হতে হোলো কয়েক হাজার মানুষকে।লোহারের বাসিন্দা কানাইলাল ঘোষ,আসানপুর গ্রামের বাসিন্দা বাসন্তী দাঁ- রা জানান সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আমরা অসুস্থ বোধ করছি। কিন্তু উপায় তো নেই বাড়িতে পাঁচশো হাজার টাকার নোটগুলি না ভাঙ্গালে বাজার তো করতে পারছি না। একপ্রকার বাধ্য হয়েই সারাদিন কেটে গেলো ব্যাঙ্কে এসে। এদিকে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা  মানুষের হাতে বাতাসা ও পানীয় জল তুলে দিয়ে প্রচার সারে তৃণমূল।পাশাপাশি বিধানসভার   উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী সৈকত পাঁজার পরিচয়পত্র তাদের হাতে তুলে দেন তৃণমূলের  কর্মীসমর্থকরা।মন্তেশ্বর পন্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ তথা তৃণমূল নেতা তড়িৎকান্তি রায় জানান মোদি সরকারের ভ্রান্ত নীতির কারণেই সাধারণ মানুষের এই দুর্ভোগ। আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরেজমিনে ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষের খোঁজখবর নিচ্ছেন।এদিকে    লাইনে দাঁড়িয়ে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন গ্রাহকেরা। তাই তারা তাদের বাতাসা জলের ব্যবস্থা করেছিলেন।

Leave a Reply