মন্তেশ্বরে উপনির্বাচনের জন্য  শুরু হলো আধা সামরিকের রুট মার্চ

আমার বাংলা ডেক্স, মন্তেশ্বর  : উপনির্বাচনের দশদিন আগেই ভারী বুটের আওয়াজে কাঁপলো বর্ধমানের মন্তেশ্বর বিধানসভার এলাকা। বুধবার থেকে  আধাসামরিক বাহিনীর টহলদারি শুরু হলো মন্তেশ্বরের বিভিন্ন এলাকায়।আগামী ১৯ শে নভেম্বর  মন্তেশ্বর বিধানসভার  উপনির্বাচন।মন্তেশ্বর বিধানসভার বিধায়ক সজল পাঁজার অকাল মৃত্যুতে এই উপনির্বাচন ।মন্তেশ্বর এলাকা বরাবরই বামেদের দখলে ছিলো। দীর্ঘ ৩৯ বছর পর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে সিপিএমের প্রার্থী চৌধুরী মহম্মদ হেদায়েতুল্লাহকে তৃণমূল প্রার্থী সজল পাঁজা ৭০৬ ভোটে পরাজিত করেন।এবারের উপনির্বাচনে সজল পাঁজার ছেলে রাজনীতির আঙ্গিনায় নতুন সৈকত পাঁজাকে প্রার্থী করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও এবারে সিপিএম প্রার্থীর বদল হয়েছে। প্রবীন ওসমান গণি সরকার কে সিপিএম প্রার্থী করেছে।গত বিধানসভার তুলনায় এই উপনির্বাচণে তৃণমূল নেতৃত্ব প্রথম থেকেই প্রচারের দিক থেকে ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছে সিপিএমকে। বর্ধমান জেলার তৃণমূলের একঝাঁক বিধায়ক সাংসদ মন্ত্রী মন্তেশ্বর বিধানসভার ১৭টি অণ্চলে প্রচার শুরু করেছেন জোরকদমে। সেই তুলনায় সিপিএম ও বিজেপি প্রার্থীর প্রচার খুবই কম। তবে সিপিএম নেতৃত্বের দাবি বাড়ি বাড়ি নিবিড় জনসংযোগ করে চলেছেন তারা।অভিযোগের মাত্রা এতটাই বেড়ে গেছে যে তাই কয়েকদিন আগে থেকেই রুট মার্চ সহ গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেল  আধাসামরিক বাহিনীকে।সাধারণ মানুষ যাতে নির্ভয়ে ভোট দেওয়ার জন্য বুথে বুথে যেতে পারেন সেই বিষয়ে বেশ তৎপরতা দেখা গেল আধা সামরিক বাহিনীকে। মন্তেশ্বর থানার পুলিশ সহ আধা সামরিক বাহিনীর এই তৎপরতা সাধারন মানুষের নিরাপত্তাকে আরো সুদৃঢ় করতে।কারণ বিরোধী সিপিএম,বিজেপি,কংগ্রেস  সহ অন্যান্য দলের অভিযোগের তীর শাসক দল তৃণমূলের  দিকে।তৃণমূল কংগ্রেস  তাদের প্রচারে বাঁধা দিচ্ছেন বলে তাদের অভিযোগ।অন্যদিকে শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধীদের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এনেছেন।শাসক ও বিরোধী দলের অশান্তি রুখতে নির্বাচণ কমিশণ তাই কড়া হাতেই প্রথম থেকে পদক্ষেপ  নিচ্ছেন।দুকোম্পানী আধাসামরিকবাহিনী মঙ্গলবার এসে উপস্থিত হন কুসুমগ্রামের কিষাণমান্ডিতে। সেখান থেকেই মেমারী ২ মন্তেশ্বরের জামনা অণ্চলে একটি করে কোম্পানীকে পাঠানো হয়েছে।উপনির্বাচনকে ঘিরে বুধবার একটি উচ্চস্তরের  প্রশাসনিক বৈঠক হয় মন্তেশ্বর থানায়।

Leave a Reply