বিষ্ণুপুর মেলায় এবারের থিম ‘উন্নয়নে বাঁকুড়া’, চলবে মেলা উপলক্ষে কলকাতা বিষ্ণুপুর বাস

অরুণাভ নিয়োগী (বিষ্ণুপুর),বাঁকুড়া

২৯তম বিষ্ণুপুর মেলা। শিল্প,সংস্কৃতি,পর্যটনের মেলা বিষ্ণুপুর মেলা।আন্তর্জাতিক স্তরে খ্যাত এই মেলা। চলবে ২৩ডিসেম্বর থেকে ২৭ডিসেম্বর। এই মেলাকে সাফল্য মন্ডিত করার জন্য জেলার প্রশাসনিক কর্তারা মেলা কমিটির সাথে আলোচনায় বসেন।আলোচনায় ছিলেন জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু,সভাধিপতি অরূপ চক্রবর্তী,বিষ্ণুপুরের মহকুমা শাসক ময়ূরী ভাসু,বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তুষার কান্তি ভট্টাচার্য্য প্রমুখ।  জানাগেছে,এই বছর মেলার থিম-‘উন্নয়নে বাঁকুড়া’।মেলার প্রথমদিনে  সারা জেলার প্রায় তিন হাজারের বেশি শিল্পী রেলিতে পা মেলাবেন।থাকবে ছৌ-নাচ,টুসু,বাউল,ধামসা-মাদল। বিষ্ণুপুর ঘরনারা শিল্পীদেরকে সংবর্ধনা দেওয়ার পাশাপাশি দেওয়া হবে বিশেষ সম্মান ।থাকছে রামানন্দ,গোপেশ্বর,যদুভট্ট মঞ্চ।প্রতিটি দিন একটি করে দিবস হিসাবে পালিত হবে সরকারি ভাবে। কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, সবুজসাথি ইত্যাদি। বিশেষ আকর্ষন,মেলাতে বালুচরী,স্বর্ণচরী,ইত্যাদি স্থানীয় তৈরি পোষাকে থাকবে প্রদর্শনি।কলকাতা থেকে বিষ্ণুপুর পর্যন্ত মেলার উপলক্ষ্যে চলবে বাস।যাতে কোলকাতা থেকে পর্যটকরা অনায়াসে বিষ্ণুপুরে পৌঁছাতে পারে।জেলার প্রতিটি ব্লক ছাড়াও আরামবাগ,দূর্গাপুরেও থাকবে মেলাতে আমন্ত্রন জানিয়ে ব্যানার।মেলার প্রচারের জন্য তৈরি হবে ফেসবুক পেজ।

বাঁকুড়া জেলার সভাধিপতি তথা মেলা কমিটির সভাপতি অরূপ চক্রবর্তী  বলেন, “এবছর বিষ্ণুপুর মেলাতে বাঁকুড়ার উন্নয়েনের থিম থাকবে। মুখ্যমন্ত্রী ভারত স্বাধীন হওয়ার পর শিল্পীদেরকে যে সম্মানটা দিল ,তা আমরা দেবার চেষ্টা করব।জঙ্গলমহলের টুসু থেকে ঝুমুর,বাউল,ধামসা-মাদল সব কিছুই আমরা তুলে ধরব।সব থেকে বেশি সম্মান দেওয়া হবে বিষ্ণুপুর ঘরানাকে।সম্প্রীতির  বার্তা দেওয়ার জন্য একদিন সংখ্যালঘুদের কাওয়ালি থাকবে।আমাদের সাংসদ মুনমুন সেন’কে আমরা আমন্ত্রন করেছি।আশাকরছি মেলা ভাল হবে।মানুষ খুব আনন্দ পাবে।”

বিষ্ণুপুর মেলায় কোনদিন কি অনুষ্ঠান জানতে চোখ রাখুন ‘আমার বাংলা’অন্যস্বাদে-র কোথায় কী পাতায় 

Leave a Reply