হলদিয়ার বাসুদেবপুর গ্রামে অবহেলিত পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল ঘোষের স্বপ্নের লোকভারতী

জাহাঙ্গীর বাদশা, হলদিয়া

হলদিয়া বালুহাটা কুকড়াহাটির রোডের পাসে বাসুদেব পুর গ্রামে পশ্চিমবঙ্গে প্রথম মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল ঘোষ স্মৃতি বিজরিত বুনিয়াদী শিক্ষার লোকভারতী কলেজ অবহেলিত হতে হতে আজ ধ্বংস হতে বসেছে। গ্রামে তরুনদের স্বনির্ভর করতে গান্ধিবাদী এই নেতা ১৯৫৫ সালে বাসুদেবপুরে প্রায় ৪৭ একর জায়গা জুড়ে গড়ে তুলেছিল এই কলেজ।

whatsapp-image-2016-12-24-at-10-13-58

মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন এই কলেজ তিনি চালাতেন। পাশাপাশি নতুন পড়ুয়াদের হাতে কলমে শিক্ষা দিতেন। বহুদূর থেকে ছেলে মেয়েরা পড়তে আসত। চূড়ান্ত সরকারি অবহেলায় কারণে প্রথম মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আজ নষ্ট হচ্ছে। কলেজের যাবতীয় সামগ্রী চুরি হয়ে গিয়েছে। ভেঙে পড়েছে এই বাড়ির বিভিন্ন অংশ । ১৮৯১ সালে ২৪শে ডিসেম্বর বাংলা দেশে মালিবান্দায় জন্ম গ্রহণ করেন। স্বাধীনতা আন্দোলনে গান্ধীজির গ্রাম সরাজ,ও বুনিয়াদি শিক্ষা ভাবনা হলদিয়া,সুতাজাটা,মহিষাদলে ছড়িয়ে দিতে  কলকাতা থেকে এখানে এসে লোকভারতী কলেজ তৈরি করেন। ১৯৬৭ সালে ২ নভেম্বর দ্বিতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হয়েও কলেজ চালিয়ে গেছেন। তবে ১৯৭১ সালের বাংলাদেশ ও পাক যুদ্ধের সময় তিনি চলে যান। এই কলেজে একসময় শিক্ষক ছিলেন মহনপুরে গ্রামে শক্তিপদ চক্রবতী।  প্রফুল্ল ঘোষের সঙ্গী ও সহশিক্ষক  ছিলেন অংশুমান কুইতি, তিনি বলেন গুজরাটে সেবাগ্রাম থেকে বুনিয়াদি শিখা পাঠ নিয়ে গ্রামে ফিরেছি । ১৯৫৬ সালে শিক্ষকতা কাজে নিযুক্ত হই ৫০টাকা বেতনে । ৮বছর শিক্ষকতা করেছি। এখানে লোকভারতী কলেজের কয়েকটি দোতলা পাকার বাড়ি,ছাত্রদের হোস্টেল পাঠাগার বিজ্ঞান চর্চার কেন্দ্র,দাতব্য চিকিৎসালয় ছিল। এখানে চরকায় সুতাকাটা,কাঠের কাজ, করা হত। হলদিয়া ব্লকে BLRO সত্যনারায়ন দাস বলেন ওনার সময়  কৃষি আধিকারীক উচ্চ ফলন ধান নিজের জায়গায় চাষ করেছিল। স্থানীয় বাসিন্দা পান্নালাল দাস বলেন প্রফুল্ল ঘোষের স্বপ্নপূরণে ইতিহাস বিজরিত এই জায়গা বেহাল হয়ে যাচ্ছে। সরকারি ভাবে কোনো উদ্যোক নেওয়া প্রয়োজন।

Leave a Reply