মালদায় ইভটিজারদের হাত থেকে স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে অস্ত্রের কোপে আক্রান্ত স্বামী ও দেওর

অর্ণব পাল, মালদা

ইভটিজারদের ইভটিজিং থেকে নিজের স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন স্বামী। স্বামীর চোখ উপড়ে নেবার চেষ্টা করল ইভটিজাররা। ইভটিজারদের হাত থেকে দাদাকে বাঁচাতে এসে গুরুতর জখম ভাইও। ইভটিজারদের ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর জখম হয়ে দুইজনই মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি। ঘটনাটি ঘটেছে ইংরেজবাজার থানার কৌতুয়ালী গ্রামে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ইভটিজারদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে গতকাল রাতে অনুষ্ঠান বাড়ি থেকে ঘরে ফিরছিলেন তারা স্বপরিবারে। পথে বেশ কয়েকজন যুবক ৩০বছর বয়সী গৃহবধূকে ইভটিজিং করে। প্রতিবাদ করে গৃহবধূর স্বামী পবিত্র দাস। এরপরই ইভটিজারদের সাথে বচসা বেধে যায়। তখন ইভটিজাররা পবিত্র দাসের চোখে ধারালো অস্ত্রের কোপ মারে। চোখ উপড়ে নেবার চেষ্টা করে। পবিত্র দাসের ভাই বাধা দিলে তাঁকেও ধারালো অস্ত্রের কোপ মাথায় মেরে পালিয়ে যায় ইভটিজাররা। রক্তাক্ত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে দুইজনই। তাদের চিৎকারে স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে আসে। অভিযুক্ত যুবকেরা পালিয়ে যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা আহত দুই ভাইকে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। ইংরেজবাজার থানার পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পবিত্র দাস জানান এলাকার যুবক অনুপ দাস সহ বেশ কয়েকজন যুবক এই কাজ করেছেন। পুলিশ তাদের খোঁজ শুরু করেছে। অভিযুক্তরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

Leave a Reply