আন্তর্জাতিক উরস উৎসবে যোগ দিতে এলো বাংলাদেশ থেকে বিশেষ ট্রেন

জাহাঙ্গীর বাদশা, মেদিনীপুর

আন্তর্জাতিক উরশ উসবে যোগ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ থেকে পূন্যার্থী নিয়ে এলো বিশেষ ট্রেন। পাশাপাশি দেশ বিদেশ  আসা হলো লক্ষাধিক মানুষ এত উৎসবে সামিল হয়েছেন। মেদিনীপুর শহরে শুরু হল ১১৬ তম  আন্তর্জাতিক ওরশ উত্সব ৷ বুধবার থেকে শহরের মির্জামহল্লাতে এই উত্সবের সুচনা হয়েছে বৃহস্পতিবার সকাল ৬ টা নাগাদ বাংলাদেশ থেকে পুণ্যার্থী নিয়ে একটি বিশেষ ট্রেনও মেদিনীপুর শহরে উপস্থিত হয়েছে ৷ মুসলিম ধর্মগুরু হজরত মহম্মদের ৩২ তম ও সুফি সাধক আব্দুল কাদের জিলানী-র ১৯ তম বংশধরের সমাধীস্থল ঘিরে এই উত্সব পালিত হয় ৷

কথিত রয়েছে মুসলমান ধর্মগুরু হজরত মহম্মদের বংশধর সৈয়দ শাহ মুর্শেদ আলি আলকাদেরী সুফি সাধনার প্রসারে ইরাকের বাগদাদ থেকে ১৭৬৮ সালে ওড়িষ্যার চাঁদবালি বন্দর হয়ে ভারতে এসেছিলেন ৷ যিনি ‘মওলাপাক’  নামে বিদিত ৷তাঁরই প্রয়ানের পরে সমাধিক্ষেত্র মেদিনীপুর শহরের দায়রাপাক সংলগ্ন জোড়ামসজিদ প্রাঙ্গনে রয়েছে ৷ ৫ দিন ধরে এই চলা এই স্মরন সভাতে বিশ্বশান্তির জন্য প্রার্থনা করা হয় ৷ যেখানে সামিল হন দেশ বিদেশের লক্ষাধিক মানুষ ৷ ১৯০২ সাল থেকে এই উত্সবে সামিল হতে বাংলাদেশ থেকে একটি বিশেষ ট্র্নে করে পুন্যার্থীরা হাজির হন ৷ ১১৬ তম এবার কার উত্সবে সামিল হতে বৃহস্পতিবার সকাল সাতটা নাগাদ সেই ট্রেনে করে ২১৩৩ জন পুন্যার্থী হাজির হয়েছেন ৷ তাঁদের অভ্যর্থনা জানাতে এই দেশের প্রশাসনিক কর্তা ও পুলিশ কর্তা থেকে জনপ্রতিনিধিরা ষ্টেশনে অপেক্ষা করেন প্রতিবারই ৷ এদিন সকালে ষ্টেষনে হাজির হতেই তাঁদের ফুল দিয়ে সংবর্ধনা দিয়ে মিষ্টি খাওয়ানো হয় পুলিশ ও মেদিনীপুর পুরসভার পক্ষ থেকে ৷

 

Leave a Reply