ট্রেনে ভিড়ের চাপ সহ্য করতে না পেরে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হলো ছাত্রের

বিজু মন্ডল, আসানসোল ঃ অন্যান্য দিনের মতোই সকালের খাবার খেয়ে ইস্কুলে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়েছিল সোয়েব। কুলটি স্টেশনে এসে আসানসোল যাওয়ার জন্য সে ট্রেনও ধরে ফেলে। কিন্তু অন্যান্য দিনের চেয়ে আজ সোমবার ছিল অত্যাধিক ভিড়। ফলে সে পা দানির ঠিক উপরেই দাঁড়িয়ে ছিল। কিন্তু ট্রেন চলতে থাকায় সেই ভিড়ের চাপ সহ্য করতে না পেরে ট্রেন থেকে পড়ে যায় সোয়াবে আখতার। ট্রেন যখন সীতারামপুর স্টেশন পেরিয়ে যায় সেই সময় বন্ধুদের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয় কেউ একজন পড়ে গেছে ট্রেন থেকে। পরের স্টেশনে তারা দেখতে পায় ট্রেনের মধ্যে সোয়েব নেই। পরে বন্ধুরা দেখতে পায় সীতারামপুর স্টেশনে ঢোকার আগেই যে পড়ে গেছে। পরে একটা গাড়ি ভাড়া করে আসানসোল জেলা হাসপাতালে আনা হলে সোয়েবকে মৃত বলে ঘোষণা করে চিকিৎসকেরা।

asansol-student-rail-accident-death_photo_

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে সোয়েব আখতার আসানসোলের হাজি কদম রসুল ইস্কুলের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। বাড়ি কুলটির পাতিয়ানা মহল্লা এলাকায়। ছাত্রদের অভিযোগ কুলটি থেকে আসানসোল আসার জন্য সকালের দিকে মাত্র একটিই ট্রেন আছে। ফলে প্রতিদিন ট্রেনে ভিড় থাকে। তবে সোমবার ট্রেনে ভিড় বেশী হয়। তবে বিকল্প হিসেবে বাস রুটের ব্যবস্থা থাকলেও অনেক সময় লেগে যায়।  ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ছাত্রছাত্রীদের কুলটি থেকে আসানসোলে আসতে হয়। আজ সোমবার হওয়ায় অত্যাধিক ট্রেনে ভিড় ছিল। কোনোরকমে ছাত্ররা ট্রেনের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে আসানসোল আসছিল। সীতারামপুর স্টেশন ঢোকার মুখেই দরজার সামনে দাঁড়িয়ে থাকা সোয়েব ভিড়ের চাপ সামলাতে না পেরে ট্রেন থেকে পড়ে যায়।

সোয়েবের এক আত্মীয় বলেন তারা বেলার দিকে খবর পান তার ভাইপো ট্রেন থেকে পড়ে গেছে। দ্রুত তারা গাড়ি নিয়ে সীতারামপুর স্টেশনে আসেন। তার আগেই সোয়েবের বন্ধুরা একটা গাড়ি ভাড়া করে সোয়েবকে চাপিয়ে নিয়ে আসানসোল জেলা হাসপাতালে চলে যায়। পরে তারা জানতে পারেন সোয়েব মারা গেছে।

4 thoughts on “ট্রেনে ভিড়ের চাপ সহ্য করতে না পেরে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হলো ছাত্রের

Leave a Reply